পর্যটনের বিকাশে ঢাকা-সিঙ্গাপুর অংশীদারত্ব বৃদ্ধির আশা

পর্যটনের বিকাশে ঢাকা-সিঙ্গাপুর অংশীদারত্ব বৃদ্ধির আশা

পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে ঢাকা ও সিঙ্গাপুরের মধ্যকার পারস্পরিক অংশীদারিত্ব বৃদ্ধির আশা দেখছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। একই সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদারের মাধ্যমে বর্জ্য থেকে বিদ্যুত ও সার উৎপাদনে জাপানের ফুকুওকা ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন বিষয়ে অংশীদারিত্ব বেগবান করার সুযোগ দেখছে সিটি করপোরেশন।

সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের সফর থেকে এমন সম্ভাবনা দেখছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন।

মঙ্গলবার (২ অগাস্ট) সিঙ্গাপুরের মেরিনা স্যান্ডস বে হোটেলে সিঙ্গাপুর ও জাপানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে পৃথক দ্বিপাক্ষিয় বৈঠকে বসেন ফজলে তাপস। প্রথমে সিঙ্গাপুরের জাতীয় মন্ত্রী ও সামাজিক সেবা সমন্বয়করণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী ডেসমণ্ড লি’র সঙ্গে বৈঠক করেন তাপস। পরে জাপানের ফুকুওকা শহরের মেয়র সোইচিরো তাকাসিমার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসেন মেয়র তাপস।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ দপ্তর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংক্ষেপে

বৈঠকে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে ঢাকা ও সিঙ্গাপুরের মধ্যকার পারস্পরিক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদারের বিষয়ে মেয়র তাপস ও ডেসমণ্ড লি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ ছাড়া ঢাকা-সিঙ্গাপুর বাণিজ্য বৃদ্ধি সংক্রান্ত নানাবিধ বিষয় নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

প্রথম বৈঠকে মেয়র শেখ তাপস নগর জীবনের সব অনুষঙ্গকে সমন্বয় করে এবং বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন বিবেচনায় নিয়ে একটি টেকসই ও জলবায়ু সহনশীল নগর ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদী মহাপরিকল্পনা প্রণয়নে গৃহিত উদ্যোগ সম্পর্কে অবগত করেন।

উত্তরে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিঘাত মোকাবিলা ও শহর ব্যবস্থাপনায় টেকসই ও দীর্ঘমেয়াদী মহাপরিকল্পনা প্রণয়নের উদ্যোগকে অত্যন্ত ‘প্রশংসনীয়’ উল্লেখ করেন সিঙ্গাপুরের উন্নয়ন মন্ত্রী ডেসমণ্ড লি। বলেন, ‘এ ধরনের পরিকল্পনা ও তার যথার্থ বাস্তবায়ন নগর ব্যবস্থাপনার জন্য অত্যন্ত জরুরি ও প্রশংসনীয়। এর মাধ্যমে ঢাকা জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব কাটিয়ে ওঠার পাশাপাশি জলবায়ু অভিঘাত সহনশীল ও আধুনিক নগরী হিসেবেও গড়ে ওঠবে।’

বৈঠকে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে ঢাকা ও সিঙ্গাপুরের মধ্যকার পারস্পরিক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদারের বিষয়ে মেয়র তাপস ও ডেসমণ্ড লি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ ছাড়া ঢাকা-সিঙ্গাপুর বাণিজ্য বৃদ্ধি সংক্রান্ত নানাবিধ বিষয় নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

পরে তাপস জাপানের ফুকুওকা শহরের মেয়র সোইচিরো তাকাসিমার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন ওই সময় দুই মেয়র নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলাপ করেন।

ফুকুওকার মেয়র বর্জ্য থেকে বিদ্যুত ও সার উৎপাদনের পাশাপাশি অন্যান্য উপজাতসমূহের ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমও তুলে ধরেন। এ বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে সহযোগিতা চান তিনি।

জবাবে মেয়র তাপস ফুকুওকার মেয়রকে ধন্যবাদ জানিয়ে দুই শহর একযোগে পারস্পরিক অংশীদারত্ব জোরদার করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ ছাড়া তাপস সিঙ্গাপুরের আরবান রিডেভেলপমেন্ট অথরিটির প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী হুই লিমের সঙ্গেও আলাদা আরেক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. তৌহিদুল ইসলাম, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মারুফুর রশিদ খান।

সিঙ্গাপুরে চলমান চার দিনব্যাপী ওয়ার্ল্ড সিটিজ সামিটে অংশ নিতে সিঙ্গাপুর সফরে আছেন শেখ তাপস। ৩১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া এই সামিটে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাষ্ট্র্য, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ৬০ দেশের মেয়র অংশ নিচ্ছেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com