ড. জসীম উদ্দিনের মৃত্যুতে বিজ্ঞান জগতে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে : ডা. জাফরুল্লাহ

পরমাণু বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন আহমেদ (বাঁয়ে) ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।
পরমাণু বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন আহমেদ (বাঁয়ে) ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।ছবি : সংগৃহীত

একুশে পদকপ্রাপ্ত ভাষা সৈনিক, পরমাণু বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুতে দেশের জ্ঞান-বিজ্ঞান জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেছে বলে শোক প্রকাশ করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

ড. জসীম উদ্দিনের মৃত্যুতে আজ শুক্রবার এক শোক বার্তায় তিনি এ কথা বলেন।

শোক বার্তায় ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন আহমেদ ছিলেন মেধাবী, শিক্ষা দরদি, পদার্থ বিজ্ঞানী ও জগৎ বিখ্যাত পরমাণুবিজ্ঞানী।’

শোক বার্তায় বলা হয়, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ঢাকা কলেজে ছাত্র থাকা অবস্থায় অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন তাদের পদার্থ বিজ্ঞান পড়াতেন। তিনি ছিলেন সবার শ্রদ্ধার ও প্রিয় ছাত্র দরদি শিক্ষক।

ভাষা আন্দোলনের অবদানের জন্য ২০১৬ সালে ড. জসীম উদ্দিনকে একুশে পদকে ভূষিত করা হয়।

তিনি জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা ও অস্ট্রিয়ায় পরিচালক ও পরমাণু বিজ্ঞানী হিসেবে কাজ করেছেন। জাতিসংঘের ৪৪টি রাষ্ট্রের কারিগরি উপদেষ্টা হিসেবে বিশ্ব ভ্রমণ করেছেন। ওই সময়ে তিনি বিশ্বে বাংলাদেশের সম্মান উচ্চতার শিখরে নিয়ে যান। সারা বিশ্বে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেন তিনি।

শোক বার্তায় আরও বলা হয়, বাংলাদেশের ইতিহাসে ড. জসীম উদ্দিন চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের ইতিহাসের আরেকটি নক্ষত্র খসে পড়ল। তিনি ছিলেন সৎ, বিনয়ী, হাস্যোজ্জ্বল ও দেশপ্রেমিক।

ড. জসীম উদ্দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পরে রচেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে আরেকটি ডিগ্রি এবং মিশিগান ইউনিভার্সিটি থেকে নিউক্লিয়ার ফিজিক্সে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

বহু গুনের অধিকারী বিজ্ঞানী, লেখক অধ্যাপক ড. জসীম উদ্দিন ছিলেন একজন আজন্ম কাব্য সাধক। তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৩৬টি। এর মধ্যে বিজ্ঞানবিষয়ক ১৭টি বই লিখেছেন। এ ছাড়া সংগীতের অ্যালবামও প্রকাশ করেছেন। তিনি দরিদ্রদের সাহায্য ও শিক্ষিত করতে ওয়াজউদ্দিন ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেন। এ ছাড়া কুমিল্লায় তার গ্রামের বাড়িতে একটি এতিমখানা, একটি স্কুল ও মসজিদও স্থাপন করেন তিনি।

শোক বার্তায় ড. জসীম উদ্দিনের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ডা. জাফরুল্লাহ। এ ছাড়া শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান তিনি।

ড. জসীম উদ্দিন আহমেদ গতকাল বৃহস্পতিবার ব্যাংককে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com