ড্রোন দিয়ে ১ লাখ ২৮ হাজার ভবনের ছাদ পরিদর্শন ডিএনসিসির

শনিবার রাজধানীর মধুবাগ এলাকায় জনসাধারণের মাঝে ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম।
শনিবার রাজধানীর মধুবাগ এলাকায় জনসাধারণের মাঝে ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম।কালবেলা

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তা নেওয়ার অংশ হিসেবে ড্রোন ব্যবহার করছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এডিস মশার লার্ভার উৎপত্তিস্থল খুঁজতে ড্রোন দিয়ে নগরীর এক লাখ ২৮ হাজার ভবন পরিদর্শন করা হয়েছে।

আজ শনিবার (৬ আগস্ট) ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে নগরবাসীর সচেতনতা বাড়াতে এক প্রচারাভিযানে অংশ নিয়ে এ তথ্য জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম।

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সিটি করপোরেশনের ভূমিকার পাশাপাশি নাগরিকদের সচেতনতার প্রতিও জোর দিয়েছেন মেয়র। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, শুধু সিটি করপোরেশন একা নয় বরং ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সবার সচেতনতা প্রয়োজন।

মেয়র বলেন, ‘ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকায় ড্রোন দিয়ে এখন পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ২৮ হাজার ভবনের ছাদ আমরা পরিদর্শন করেছি। আমরা নিজেরাই এডিসের লার্ভার প্রজননক্ষেত্র তৈরি করি। সিটি করপোরেশন নিয়মিত বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে। সবাই সচেতন না হলে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয়। ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।‘

যদিও জনগণের সচেতনতা ও সহযোগিতায় গত বছরের তুলনায় এ বছর আমরা ডেঙ্গু অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। আমরা চাই ডেঙ্গু পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রাখতে। সেজন্য জনগণের সহযোগিতা লাগবে।
আতিকুল ইসলাম, মেয়র ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন

মেয়র আতিক জানান, গত বছরের তুলনায় এ বছর ডেঙ্গু অনেকটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে তারা চান পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রাখতে। এ জন্য সিটি করপোরেশন বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে।

প্রচারাভিযানে ডিএনসিসি মেয়র মধুবাগ এলাকায় বিভিন্ন সড়ক ঘুরে জনসাধারণের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন এবং নিজে মাইকিং করেন।

মেয়র মধুবাগের শের-ই-বাংলা স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেন। ট্রাকে উঠে এডিস মশার উৎসস্থল-গাড়ির পরিত্যক্ত টায়ার, ডাবের খোসা, মাটির পাত্র, খাবারের প্যাকেট, অব্যবহৃত কমোড এগুলো দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতন করেন তিনি।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com