তরুণ চোখে বিশ্বকাপ

তরুণ চোখে বিশ্বকাপ
  • প্রথমদিকে মনে হয়েছিল বিশ্বকাপের উন্মাদনা আগের তুলনায় কম। কিন্তু বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার পর দেখছি সবখানে উত্তেজনা ছড়িয়ে গেছে। রাস্তায় গেলেও শুনতে পাচ্ছি খেলা নিয়ে, ক্লাসে গেলেও স্যারের মুখ থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে খেলার কথা। এ ব্যাপারগুলো খুব উপভোগ করছি।

কাজী আফতাবুন নাহার জ্যোতি, কুমিল্লা

  • বন্ধুদের সঙ্গে আড়ি নিয়ে জার্মানির সমর্থন শুরু করেছিলাম। ভেবেছিলাম এত এত স্ট্রাইকার নিয়ে প্রথম থেকেই জিতবে জার্মানরা। কিন্তু প্রথম ম্যাচেই জাপানের সঙ্গে... এখন বন্ধুদের আড্ডায় যাই কীভাবে?

রোমান মেহেদী, নাটোর, রাজশাহী

  • সৌদি আরবের কাছে আমরা মানে আর্জেন্টাইন সমর্থকরা এভাবে হোঁচট খাব বুঝতে পারিনি। ২০০২ সালের পর সবচেয়ে শক্তিশালী দল ছিল। কিন্তু প্রথম ম্যাচেই সৌদি আরবের কাছে হার! প্রত্যাশা আর হতাশা নিয়ে বিশ্বকাপ উপভোগ করছি।

আবুল তালহা, বগুড়া

  • আর্জেন্টিনার ডাই হার্ট ফ্যান হিসেবে এখন বিরাট সমস্যায় আছি। আত্মীয়, বন্ধু এমনকি ফেসবুকের বন্ধুরাও আমাকে সান্ত্বনা দিচ্ছে। একজন তো বাসায় চোখ মোছার জন্য টিস্যু বক্স পাঠাবে কিনা তাও জানতে চাইল। অবশ্য এই আকালের দিনে ফ্রিতে টিস্যু পেলেই বা ক্ষতি কী!

সাদিয়া আফরিন আন্নি, নারায়ণগঞ্জ

  • সবখানেই বিশ্বকাপ নিয়ে কথা। চা খেতে গিয়ে শুনি এবার নাকি অফসাইড বেশি। আমি তো খেলার কিছুই বুঝি না, তাই আমি পরেছি ফান্দে! অফসাইড বেশি হলে ক্ষতি কী তাও জানি না, লাভ কী তাও জানি না। খেলা না বুঝলে বিশ্বকাপের সময় চলাই দায়!

চিন্ময় রানা, উত্তরা, ঢাকা

  • বিশ্বকাপের আগে আগে অনেক মানুষ মুখ বড় বড় করে বলেন, উগ্র সমর্থন ভালো না, প্রতিপক্ষ হারলে তাকে তুলোধুনো করতে নেই, ইত্যাদি ইত্যাদি। সত্যটা হলো এটা কেউ মানে না। মানুষ মাত্রই প্রতিপক্ষকে গর্তে পড়া দেখতে চায়, যা-তা বলে খেপাতে চায়। ফুটবলে ভদ্রোচিত উদযাপন বলে কিছু আছে বলে আমার মনে হয় না। তবে হ্যাঁ, দিন সবারই আসে। যেদিন আমার দিন আসবে, সেদিন কিন্তু আমি তোমাদের ক্ষমা করে দেব!

মৃত্তিকা রায়, রাজশাহী

  • খেলা আমরা কেন দেখি? এমন একটা লেখা ইন্টারনেটে পড়েছিলাম। সারকথা ছিল, খেলাধুলা আমাদের মস্তিষ্কের ভেতর নানা ধরনের উদ্দীপনার মাল-মশলা তৈরি করে। একজন তারকা খেলোয়াড়ের দেখাদেখি আমাদেরও মন চায় কোনো একটা ক্ষেত্রে তারকা হয়ে যাই। তারকাদের মতো মানবতা দেখিয়ে কোটি মানুষের মন জিতে যাই। সুতরাং, বিবাদ ছেড়ে আসুন, আমরা হয়ে যাই চারুকলার মেসি কিংবা ডাক্তার নেইমার।

সঞ্জয় চক্রবর্তী, ফেনী

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com