কেন চেহারা ফোলা মেহজাবীনের

মেহজাবীন
মেহজাবীন

নির্মাতা ভিকি জাহেদের বেশ কয়েকটি নাটকে দেখা গেছে অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরীকে। যার বেশিরভাগই হয়েছে তুমুল আলোচিত। সবশেষ কাজ ‘কাজলের দিনরাত্রি’ নাটকে একেবারের অন্যরূপে এসে চমকে দিয়েছিলেন এই তারকা। এবারও একইভাবে নিজেকে ভাঙলেন। নতুন কাজের নাম ‘দ্য সাইলেন্স’। যেখানে শ্যামল মাওলার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন তিনি। আর এ চরিত্রের জন্য শরীরের ওপর দিয়ে রীতিমতো ধকল গেছে তার। ফুলিয়েছেন চোখ, নাক ও ঠোঁট।

ভিকির পরিচালনায় তার সঙ্গেই যৌথভাবে সিরিজটির চিত্রনাট্য করেছেন নাজিম উদ দৌলা। চিত্রগ্রহণে ছিলেন বিদ্রোহী দীপন। জানা গেছে, ফেব্রুয়ারির প্রথমদিকে সিরিজটি মুক্তি পেতে পারে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম বিঞ্জে। এ সিরিজের কাহিনি এগিয়েছে দুই দম্পতির গল্পে। একদিকে রয়েছেন আজিজুল হাকিম-বিজরী বরকতউল্লাহ, অন্যদিকে মেহজাবীন-শ্যামল।

এ সিরিজে মেহজাবীন প্রসঙ্গে ভিকি বললেন, ‘‘তিনি সবসময়ই নিজেকে ভাঙছেন, একই রকম দুটি চরিত্রে এখন আর দেখা যায় না তাকে। প্রতিটি গল্পেই নতুন রূপে হাজির হচ্ছেন। ‘দ্য সাইলেন্স’ ও তেমনটাই দেখা যাবে। লুক কিংবা অভিনয়ে নতুনত্ব রয়েছে। দর্শকরা ভিন্ন এক মেহজাবীনকে দেখতে পাবেন। নির্মাতা জানান, দর্শনের দিক থেকে ‘দ্য সাইলেন্স’ মানবজাতির আদিপিতা-আদিমাতার সেই নিষিদ্ধ ফল খাওয়ার গল্পটিকে ছুঁয়ে গেছে।

শ্যামল
শ্যামল

তার ভাষ্য, ‘‘পৃথিবীর শুরু থেকেই তো নিষিদ্ধ জিনিসের প্রতি মানুষের আকর্ষণ রয়েছে। দর্শনের এ দৃষ্টিকোণে ‘দ্য সাইলেন্স’ হালকাভাবে ছুঁয়ে গেছে। অন্যভাবে যদি বলি, শ্যামল-মেহজাবীন এখানে উচ্চাভিলাষী দম্পতি; সাফল্যের জন্য যাদের তাড়না রয়েছে। অন্যদিকে বিজরী বরকতউল্লাহ-আজিজুল হাকিম আরেকটি দম্পতি। যারা এরই মধ্যে অনেক অনেক সাফল্যের দেখা পেয়েছেন। এ দুই দম্পতির মধ্যে একটি প্রতিযোগিতা হবে, তবে প্রতিযোগিতাটা কী নিয়ে তা জানতে হলে দর্শকদের দ্য সাইলেন্স দেখতে হবে।’’

ভিকি জাহেদ
ভিকি জাহেদ

এরই মধ্যে প্রকাশ্যে এসেছে ‘দ্য সাইলেন্স’ সিরিজের অভিনয়শিল্পীদের লুক। মেহজাবীনকে দেখা গেছে চোখমুখ ফুলে গেছে। বাকিরা স্বাভাবিক। তবে সবারই ঠোঁট সেলাই করা! নীরবতার ইঙ্গিত দিতেই এমনটা কিনা কে জানে!জানা গেছে, গত বছর নভেম্বরে ঢাকা, দোহার ও মানিকগঞ্জের বেশ কিছু লোকেশনে দৃশ্যায়ন হয় সিরিজটির।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com