শুধু মায়ের নাম লেখা যাবে শিক্ষা ফরমে : হাইকোর্ট

হাইকোর্ট।
হাইকোর্ট।পুরোনো ছবি

কোনো পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য শিক্ষার্থীদের স্টুডেন্ট ইনফরমেশন ফরমে (এসআইএফ) বাবার নাম বাধ্যতামূলকভাবে লেখাকে অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। রায়ে বলা হয়েছে, কেউ বাবার নাম উল্লেখ করতে না চাইলে মা অভিভাবক হবেন। কোনো শিক্ষার্থী ফরমে বাবা বা তার মা বা কোনো বৈধ অভিভাবকের নাম উল্লেখ করলে তা গ্রহণ করতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সব শিক্ষা বোর্ডের প্রতি এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসএসসি পর্যায়ে বাবার নাম উল্লেখ না করে মায়ের নাম দিয়ে রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করায় তা বাতিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ১৪ বছর আগে করা এক রিটের চূড়ান্ত শুনানি শেষে গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি খায়রুল আলমের বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালত বলেন, কোনো শিক্ষার্থীর এসআইএফে তার বাবার নাম উল্লেখ করতে সমস্যা থাকতে পারে। বাবার নাম না লেখার কারণে যদি তাকে এসআইএফ সম্পূর্ণ করতে না দেওয়া হয় তবে তারা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবেন, যা সংবিধানে বর্ণিত তাদের মৌলিক অধিকারের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশ করলে এ রায়ের বিস্তারিত জানা যাবে।

সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশগুপ্ত জানান, ফরমে অভিভাবক হিসেবে শুধু বাবার নাম উল্লেখ করা অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যবহৃত সব ফরম পূরণে অভিভাবকের ঘরে বাবা অথবা মা অথবা আইনগত অভিভাবক শব্দ বাধ্যতামূলকভাবে যুক্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রায়ের পর রিট আবেদনকারীদের আইনজীবী আইনুন নাহার সিদ্দিকা বলেন, এই রায়ের ফলে মায়ের অধিকার আংশিক প্রতিষ্ঠিত হলো। আর মাতা-পিতার পরিচয়হীন যে কোনো শিশুর শিক্ষার অধিকার নিশ্চিত হলো।

‘বাবার পরিচয় নেই, বন্ধ হলো মেয়ের লেখাপড়া’ শিরোনামে ২০০৭ সালের ২৮ মার্চ একটি দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। তাতে বলা হয়, এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের পূর্বে শিক্ষার্থী তথ্য ফরমে অত্যাবশ্যকীয়ভাবে বাবার নাম পূরণ করতে না পারার কারণে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড ঠাকুরগাঁওয়ের এক কিশোরীকে এসএসসির প্রবেশপত্র দিতে অস্বীকৃতি জানায়।

প্রতিবেদনটি যুক্ত করে ব্লাস্ট, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ ও নারীপক্ষ ২০০৯ সালে রিট করে।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com