আজ সমাবেশ, ৪ ফেব্রুয়ারি ফের বিক্ষোভ বিএনপির

আজ সমাবেশ, ৪ ফেব্রুয়ারি ফের বিক্ষোভ বিএনপির

সরকারবিরোধী চলমান যুগপৎ আন্দোলনের চতুর্থ কর্মসূচি হিসেবে গণতন্ত্র হত্যা দিবসে আজ বুধবার ঢাকাসহ সারা দেশের জেলা ও মহানগরে সমাবেশ করবে বিএনপি ও সমমনা রাজনৈতিক দলগুলো। এদিন ঢাকায় সমাবেশ হবে আট স্থানে। দুপুর ২টায় নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দলের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখার যৌথ উদ্যোগে সমাবেশ করবে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এতে প্রধান অতিথি থাকবেন। যুগপৎ কর্মসূচির এ সমাবেশে ব্যাপক লোকসমাগম ঘটানোর মধ্য দিয়ে দলের ধারাবাহিক কর্মসূচির সাময়িক ছন্দপতনের তকমা ঘুচাতে চায় হাইকমান্ড। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিএনপি। এদিকে যুগপৎ আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি হিসেবে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি দেশব্যাপী জেলা ও মহানগরে ফের বিক্ষোভ সমাবেশ করবে বিএনপি এবং সমমনা ৫৫টি দল ও সংগঠন। ১০ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে এবং

গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সরকার ও সরকারি দলের বাধা সৃষ্টি; জ্বালানি ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে নতুন এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। সমমনা জোট ও দলগুলোর লিয়াজোঁ কমিটির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে যুগপৎ আন্দোলনের পঞ্চম এই কর্মসূচি চূড়ান্ত করেছে বিএনপি। আজ পৃথক মঞ্চ থেকে নতুন এ কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হবে।

নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবিতে গত বছরের ১০ ডিসেম্বর ঢাকার গণসমাবেশ থেকে যুগপৎ আন্দোলনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। এই পর্যন্ত চলমান যুগপৎ আন্দোলনের তিন দফা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। প্রথম কর্মসূচি হিসেবে ঢাকায় ৩০ ডিসেম্বর এবং ঢাকার বাইরে ২৪ ডিসেম্বর গণমিছিল হয়। দ্বিতীয় কর্মসূচি ছিল ঢাকাসহ সারা দেশে বিভাগীয় শহরে ১১ জানুয়ারি গণঅবস্থান। সর্বশেষ গত ১৬ জানুয়ারি বিক্ষোভ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালন করা হয় তৃতীয় দফার কর্মসূচি। চতুর্থ কর্মসূচি হিসেবে আজ ২৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবসে দেশব্যাপী জেলা ও মহানগরে সমাবেশ করবে বিএনপি। কেন্দ্রীয়ভাবে দুপুর ২টায় নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করবে দলটি।

জানা যায়, ঢাকার সমাবেশ সফলে গত কয়েক দিন ধরে ঘরোয়া বৈঠক ছাড়াও প্রস্তুতি সভা, কর্মিসভা করেছে বিএনপি। মহানগরের প্রতিটি ওয়ার্ড, থানা ছাড়াও অঙ্গ ও সংগঠনের প্রতিটি শাখা সর্বোচ্চ লোকসমাগমের প্রস্তুতি নিয়েছে। বিএনপির বাইরে সমমনা রাজনৈতিক জোট এবং দলগুলোও এদিন ঢাকায় পৃথকভাবে সমাবেশ করবে।

গণতন্ত্র মঞ্চের অন্যতম নেতা ও ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু কালবেলাকে জানান, বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করবে গণতন্ত্র মঞ্চ। অবমূল্যায়নের অভিযোগে গণতন্ত্র মঞ্চের সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে টানাপোড়েন চললেও মঞ্চের আজকের সমাবেশে গণঅধিকার পরিষদ অংশ নেবে। পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হানিফ এ তথ্য জানিয়েছেন। গত ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত গণতন্ত্র মঞ্চের কর্মসূচি বয়কট করেছিল গণঅধিকার পরিষদ।

জাতীয়তাবাদী সমমনা জোটের সমন্বয়ক ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ জানান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে তাদের সমাবেশ শুরু হবে সকাল ১১টায়। ১২ দলীয় জোটের নেতা শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী জানান, বুধবার বিকেল ৩টায় বিজয়নগর পানির ট্যাংকের নিচে তারা সমাবেশ করবেন। এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন রাজ্জাক জানান, কারওয়ান বাজার এফডিসি-সংলগ্ন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দুপুর ২টায় সমাবেশ হবে। এ ছাড়া বাম গণতান্ত্রিক ঐক্য সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করবে বলে জানান জোটের সমন্বয়ক হারুন চৌধুরী। এদিকে সকাল ১১টায় মোস্তফা মোহসীন মন্টুর নেতৃত্বাধীন গণফোরাম ও বাবুল সরদার চাখারীর নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ পিপলস পার্টি (বিপিপি) যৌথভাবে মতিঝিলের আরামবাগে সমাবেশ করবে বলে জানান গণফোরামের (মন্টু) তথ্য ও গণমাধ্যমবিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মদ উল্লাহ মধু। সমমনা পেশাজীবী গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়কারী মুহাম্মদ সাইদুর রহমান জানান, বুধবার সকাল ১১টায় পুরানা পল্টন মোড়ে তাদের সমাবেশ হবে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স জানান, তাদের ১১ জ্যেষ্ঠ নেতা ঢাকার বাইরে ১১ মহানগরে যাচ্ছেন। তারা সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন। বরিশালে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চট্টগ্রামে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, রাজশাহীতে ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, গাজীপুরে বরকত উল্লাহ বুলু, কুমিল্লায় মো. শাহজাহান, সিলেটে ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহে শামসুজ্জামান দুদু, রংপুরে আহমেদ আজম খান, খুলনায় নিতাই রায় চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল এবং ফরিদপুরে হাবিব-উন-নবী খান সোহেল যাবেন। প্রিন্স জানান, বাকি জেলাগুলোয় সমাবেশ সফল করার দায়িত্ব পড়েছে স্থানীয় নেতাদের ওপর। জেলা-মহানগরের সমাবেশগুলো বিভাগীয় সাংগঠনিক ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকরা সমন্বয় করবেন।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com