প্রস্রাব চেপে রাখলে নারীদের যত বিপদ

প্রস্রাব চেপে রাখলে নারীদের যত বিপদ
dell

অনেক নারীই দীর্ঘক্ষণ ইউরিন চেপে রাখেন। এই অভ্যাস থেকে মারাত্মক শারীরিক সমস্যা ডেকে আনতে পারে। প্রথম দিকে সাধারণ সংক্রমণ দেখা দিলেও পরে তা ক্রনিক আকারে দেখা দিতে পারে।

একজন সুস্থ ব্যক্তি দিনে দুই থেকে তিন লিটার পানি পান করেন। এতে সারা দিনে ন্যূনতম ছয় থেকে সাতবার ইউরিন পাস করা উচিত। তবে একদিনে চারবারের কম প্রস্রাব করলে ধরে নিতে হবে যে তিনি তা চেপে রেখেছেন।

দীর্ঘক্ষণ ইউরিন চেপে রাখলে নারীদের ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা পুরুষদের তুলনায় বেশি দেখা দেয়। এর মধ্যে রয়েছে—

ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন (ইউটিআই) : নানা কারণে নারীদের ইউরিনারি ট্র্যাক্ট-এ ইনফেকশনের ঝুঁকি থাকে বেশি। দীর্ঘদিন ধরে ইউরিন চেপে রাখার অভ্যাস থাকলে এতে ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

ধরা যাক, কোনো নারীর ইউরিনে অল্পসংখ্যক ব্যাকটেরিয়া রয়েছে; কিন্তু ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বা কার্যকারিতা এতটা বেশি নয় যে, ইনফেকশন তৈরি করতে পারে। এমন অবস্থায় বারবার ইউরিন পাস হলে ব্যাকটেরিয়া বেরিয়ে যেতে পারে। কিন্তু দীর্ঘসময় পাস না হলে ব্যাকটেরিয়াও বেরিয়ে আসার সুযোগ পায় না। তখন তারা দ্রুত মূত্রথলিতে বাড়তে শুরু করে দেয়। আর এতে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে।

ধারণা করা হয়, প্রায় প্রত্যেক নারীই তাদের জীবদ্দশায় অন্তত একবার হলেও এই সংক্রমণের শিকার হয়ে থাকেন। তবে বারবার ইউটিআইতে ভুগলে তা গুরুতর চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। বছরে তিনবার বা তার বেশি ইউটিআই হলে সেটাকে বলে রেকারেন্ট ইউটিআই।

ডায়াবেটিস, অ্যানিমিয়া থাকলে বা সন্তানসম্ভবা অবস্থায় ইমিউনিটি কম থাকা নারীদের রেকারেন্ট ইউটিআইয়ের সংক্রমণ কিডনিতেও পৌঁছে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে রোগীকে হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা করাতে হয়।

আবার রেকারেন্ট ইউটিআই থেকে নারীরা বন্ধ্যত্বের সমস্যাতেও ভুগতে পারেন। কারণ, রেকারেন্ট ইউটিআই ইনফেকশন অনেক সময় ইউটেরাস বা ফ্যালোপিয়ান টিউবে পৌঁছে যেতে পারে।

একবার এ ধরনের সমস্যা হলে পুরোপুরি সুস্থ হওয়াটা কঠিন। তখন সন্তান ধারণও সম্ভব হয় না অনেক ক্ষেত্রে।

ব্লাডার মাসল ডিসফাংশন : দীর্ঘদিন ইউরিন চেপে রাখার অভ্যাস থেকে ইউরিন ধরে রাখলে পেশিতে সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ ক্ষেত্রে মূলত দুই ধরনের সমস্যা হয়। প্রথমত ইউরিন ফ্লো শুরু করা যায় না। অর্থাৎ ইউরিনের বেগ আসা সত্ত্বেও ইউরিন পাস হয় না বা অনেক সময় লাগে। দ্বিতীয়ত, ইউরিন ধরে রাখতে না পারা। অর্থাৎ ইউরিনের বেগ পেলে আপনা-আপনিই বের হয়ে যায়। এ ধরনের সমস্যায় ইউরোলজিস্টের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করাতে হয়।

স্টোন বা পাথর : দীর্ঘক্ষণ ইউরিন চেপে রাখলে মূত্রনালিতে স্টোন হওয়ার আশঙ্কাও বাড়ে।

প্রতিকার

এ ক্ষেত্রে সচেতনতাই বড় প্রতিকার। নিজের ভালোর কথা ভেবেই বেশিক্ষণ ইউরিন চেপে রাখা উচিত হবে না। টয়লেটের ভালো সুবিধা নেই, এমন কোথাও বেশিক্ষণ থাকবেন না।

লেখক : মেডিসিন ও গ্যাসট্রোএন্টারওলজিস্ট।

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
kalbela.com