‘উই কালারফুল ফেস্ট’

হাজারো এফ-কমার্স নারী উদ্যোক্তার আসর
‘উই কালারফুল ফেস্ট’

রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে দেশের তৃণমূল পর্যায়ে থেকেই নারী উদ্যোক্তারা কাজ করছেন দেশীয় পণ্য নিয়ে। আর প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সেসব পণ্য দেশের আনাচে-কানাচে এমনকি দেশের বাইরেও ছড়িয়ে দিচ্ছেন তারা। ফেসবুক কমার্স বা এফ-কমার্স উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচিত এমন হাজারো নারী উদ্যোক্তার আসর বসেছিল ‘উইমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ট্রাস্ট (উই) কালারফুল ফেস্ট -২০২৩’-এ। উইয়ের উদ্যোগে ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্যসহ শতাধিক দেশীয় পণ্যের পসরা সাজিয়েছিলেন নারী উদ্যোক্তারা। পাশাপাশি ক্ষুদ্র পরিসরে ব্যবসা শুরু করা নারী উদ্যোক্তারা পেয়েছেন দেশি-বিদেশি প্রশিক্ষকদের ‘মেন্টরশিপ’।

সম্প্রতি রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কে ‘কালারফুল ফেস্ট’ -এর আয়োজন করে উই। দুই দিনব্যাপী এই আয়োজনে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় দেড় হাজার নারী উদ্যোক্তা অংশ নেন, যাদের বেশিরভাগই এফ-কমার্সভিত্তিক ব্যবসায়ী। নারী উদ্যোক্তাদের সঙ্গে আলাপে জানা যায়, তাদের বেশিরভাগেরই ব্যবসার হাতেখড়ি হয় উইয়ের ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে। অনেকেই উই থেকে কাজ শুরু করে এখন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। বর্তমানে উইয়ে প্রায় ১৪ লাখ নারী সদস্য রয়েছেন যাদের একটি বড় অংশই ব্যবসায়ী। গত বছরের অক্টোবরে বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মালিকানা প্রতিষ্ঠান মেটা তাদের কমিউনিটি এক্সেলারেটর প্রোগ্রামে বাংলাদেশ থেকে আরও পাঁচটি গ্রুপের সঙ্গে নির্বাচিত করে।

উই আয়োজিত কালারফুল ফেস্ট ঘুরে দেখা যায়, ১১০ নারী উদ্যোক্তা ৭০টি স্টলে তাদের পণ্যগুলো তুলে ধরেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে নকশী কাঁথা নিয়ে আসেন নূর বুটিকস অ্যান্ড নকশী কাঁথার শাহিনুর আক্তার। জিআই পণ্য মসলিন সিল্ক তুলে ধরেন ওহি বুটিকের কর্ণধার নার্গিস পারভিন। ‘প্রিটি লেডি’র স্বত্বাধিকারী আকলিমা সুলতানা লিমা তার স্টলে রেখেছিলেন আরেক জিআই পণ্য জামদানি। পাশাপাশি লিমা তৈরি করছেন জামদানি কাপড়ে হাতের ব্যাগ।

কার্পেটের দেশীয় সংস্করণ জিআই পণ্য শতরঞ্জি নিয়ে এসেছিলেন ‘ট্র্যাডিশনাল ইনসিগ্নিয়া’-এর কর্ণধার শায়লা পারভিন। অন্যদিকে পাটজাত পণ্য নিয়ে নীলফামারি থেকে এসেছিলেন ‘নান্দনিক ক্রাফট’-এর কর্ণধার রাজিয়া সুলতানা। পাশাপাশি রিসাইকেল করা পণ্য ছিল ‘ট্রাই দেশি’-এর স্টলে। ফেসবুকভিত্তিক ব্যবসা এবং উইর অভিজ্ঞতা নিয়ে আকলিমা সুলতানা লিমা বলেন, উইয়ের একটা বড় উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশীয় পণ্য দেশ ও দেশের বাইরে চারদিকে ছড়িয়ে দেওয়া। আমরাও ২০২০ সালে উইয়ের সঙ্গে কাজ শুরু করি। বিগত দুই বছর ধরে আমাদের জামদানি পণ্য এখন বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ লাখ টাকার পণ্য আমরা রপ্তানি করেছি, যা আমার মতো ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের জন্য অনেক অনুপ্রেরণার। কোনো একটা চাকরি করলে বা দোকান দিলে বাইরে যে সময়টা দেওয়া লাগত সেই সময়টা আমরা ঘরে থেকেই নিজেদের ব্যবসার ব্র্যান্ডিং করতে পারছি ফেসবুক এবং উই তথা-প্রযুক্তির মাধ্যমে।

কালারফুল ফেস্ট নিয়ে উইয়ের প্রতিষ্ঠাতা নাসিমা আক্তার নিশা বলেন, ২০১৮ সাল থেকে উই কালারফুল ফেস্ট আয়োজিত হয়ে আসছে। এই আয়োজনের মাধ্যমে আমরা দেশি পণ্য নিয়ে কাজ করা নারী উদ্যোক্তাদের একটি সুযোগ করে দেই তাদের পণ্য বৃহৎ পরিসরে প্রদর্শন করার। বিশেষ করে রাজধানীর বাইরের এলাকাগুলোতে থাকা এফ- কমার্সভিত্তিক নারী উদ্যোক্তারা তাদের পণ্যগুলো প্রদর্শন করতে পারেন। এই আয়োজনে দেশের ও দেশের বাইরে থেকে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী আসেন এই উদ্যোক্তাদের পণ্য দেখার জন্য। এমন অনেক উদাহরণ আছে যেখানে তাদের হাত ধরে ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের পণ্য বড় পরিসরে গিয়েছে, বিদেশেও রপ্তানি হয়েছে। ফলে সামগ্রিকভাবে এই আয়োজন নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটা ‘বিটুবি’ এবং ‘লোকাল টু গ্লোবাল’ প্ল্যাটফর্ম হিসেবেও কাজ করছে।

কালারফুল ফেস্টের প্রথম দিনে শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। পাশাপাশি তৃতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণির ১২৪ শিক্ষার্থীকে ‘হাজী সাহাবুদ্দিন বৃত্তি’ প্রদান করে উই। দ্বিতীয় দিনে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য দুটি মাস্টার ক্লাসের আয়োজন করে উই যেখানে সৌম্য বসুর মতো আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষকরা মেন্টরিং করেন। এসব মাস্টার ক্লাসে অফলাইন-অনলাইন মার্কেটিং, বিজনেস পলিসি, অনলাইনে ব্যবসা করার জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন বিষয় নারী উদ্যোক্তাদের কাছে তুলে ধরা হয়।

>>শাওন সোলায়মান

এ সম্পর্কিত খবর

No stories found.
logo
kalbela.com